বগুড়ার নন্দীগ্রামে রহিমা খাতুন নামে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে পুলিশ উপজেলার ঢাকইর গ্রামে ঘরের বিছানা থেকে গলায় ওড়নার ফাঁস দেওয়া লাশ উদ্ধার করেছে। তবে এলাকাবাসী সন্দেহ করছেন, ওই ছাত্রী মায়ের পরকীয়ায় বলি হতে পারেন।

পুলিশ ও স্বজনরা জানান, রহিমা খাতুন বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার ঢাকইর গ্রামের রিকশাভ্যানচালক রেজাউল করিমের মেয়ে। তিনি নন্দীগ্রাম সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের চলতি উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলেন। বাবা রেজাউল করিম ঢাকায় রিকশাভ্যান চালান। এ সুযোগে মা গ্রামে এক ব্যক্তির সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। রহিমা খাতুন অনেক চেষ্টা করেও মাকে পরকীয়া থেকে বিরত ও বাবা-মায়ের দাম্পত্য কলহ মেটাতে পারেননি। এসব নিয়ে মায়ের সঙ্গে তার (রহিমা) সম্পর্কের অবনতি হয়।

তদন্তকারী কর্মকর্তা নন্দীগ্রাম থানার এসআই সুলতান জানান, বাবা ঢাকায় থাকায় মা গ্রামে পরকীয়া জড়িয়ে পড়েন। মা কথা না শোনা ও বাবা বাড়িতে না আসায় অভিমানে ওই কলেজছাত্রী আÍহত্যা করে থাকতে পারেন। এরপরও সন্দেহ থাকায় লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে এটি হত্যা না আত্মহত্যা সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

Share.

Leave A Reply

Exit mobile version