আপডেট: ২০৫৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৮, ২০২৪ |  অনলাইন সংস্করণ মেয়ের অসুস্থতায় ‘দিশেহারা’

মেয়ের অসুস্থতায় ‘দিশেহারা’ বাবা জিয়া ফিরেছেন বিপিএলে
মেয়ের অসুস্থতায় ‘দিশেহারা’ বাবা জিয়া ফিরেছেন বিপিএলে

মেয়ের অসুস্থতায় ‘দিশেহারা’

পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে জিয়াউর রহমান ব্যাংককে গিয়েছিলেন বেড়াতে।

সেখানেই জ্বর আসে ৮ বছরের মেয়ে মাহিরা রহমান জোহার।   এরপর ফিরে আসেন। ৬ তারিখ খুলনায় বাড়ে মেয়ের অসুস্থতা। অস্থির বাবার শুরু হয় দুশ্চিন্তা।  মেয়েকে নিয়ে পরদিনই চলে যান ঢাকায়। স্কয়ার হাসপাতালে কিছুদিন চিকিৎসা নেন।

কিন্তু উন্নতি না হওয়ায় তার মন মানেনি। মেয়ে জোহাকে নিয়ে উড়াল দেন ব্যাংককে। দুশ্চিন্তায় ঘিরে থাকা সময় কাটিয়ে এখন মেয়ের অব্স্থা উন্নতির দিকে।   তাকে নিয়ে দেশে ফিরেছেন। তিন মাসের জন্য ওষুধ দিয়েছেন ডাক্তার। আপাতত সেসব নিচ্ছেন। মেয়ে আছেন ঢাকায়। অস্থির পায়চারিতে কাটা সময় শেষে বাবা জিয়াউর রহমান এখন ফিরেছেন বিপিএলে। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে অনুশীলনে মাঠে নেমেছেন তিনি।

clipping path tech

  মেয়ের অবস্থার কথা জানিয়ে রোববার জিয়া বলছিলেন, ‘আমার বাচ্চা হুট করে অসুস্থ হয়ে। পড়েছিল

খুব খারাপ অবস্থা হয়েছিল। আল্লাহর অশেষ রহমতে ও আপনাদের দোয়ায় ও ভালো আছে। এখন ওষুধ চলছে ওর। ডাক্তার তিন মাসের একটা কোর্স দিয়েছে। ওটাই চলছে। ’   বিপিএলের শুরুর দিকে মাঠে নামতে পারেননি জিয়া। তাকে ছাড়া খেলা চার ম্যাচের তিনটিতে জিতেছে চট্টগ্রাম।

এ সময়ে দলের সঙ্গে থাকেননি। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছ থেকে ঠিকই সমর্থন পেয়েছেন। এজন্য তিনি জানিয়েছেন ধন্যবাদও।   তিনি বলেন, ‘মানুষের বিপদে যদি মানুষ না থাকে, তাহলে কিন্তু মানুষ বলা যাবে না। এটা কিন্তু স্বাভাবিক নিয়ম, আপনি বিপদে পড়েছেন আমি পাশে থাকবো।

metafore online

আসলে অনেক সময় (এমনটা) হয় না। কিন্তু আমার দল আমাকে মানসিকভাবে খুব সমর্থন দিয়েছে। ’   ‘সবসময় আমার পাশে ছিল, আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে; খোঁজ নিয়েছে। একজন সন্তানের বাবা হিসেবে আমি খুশি। তারা আমাকে কোনো চাপ দেয়নি। তারা বলেছে আপনি থাকেন, কোনো টেনশন নিয়েন না। আপনার কোনো সাহায্য লাগলে আমরা আছি।

জিয়াউর রহমান সপরিবারে ব্যাংকে ঘুরতে যান।

সেখানে মাহিরা রহমান জোহার ৮ বছরের মেয়ের জ্বর হয়। তারপর ফিরে এলেন। ষষ্ঠ দিনে খুলনায় মেয়েটির অসুস্থতা তীব্র আকার ধারণ করে। অস্থির বাবা চিন্তা করতে শুরু করেন। পরদিন মেয়েকে নিয়ে ঢাকা চলে যান তিনি। স্কয়ার কয়েকদিন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। কিন্তু কোনো উন্নতি না হওয়ায় তিনি তার মেয়ে জোহারাকে নিয়ে ব্যাংককে যান। মেয়েটির অবস্থা এখন উন্নতি হওয়ায় তাকে ঘিরে ছিল দুশ্চিন্তা।

  তাকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন। ডাক্তার তিন মাস ওষুধ দিলেন। আপাতত সেগুলো নিয়ে যান। মেয়ে ঢাকায়। অস্থির সফরে সময় কাটিয়ে এখন বিপিএলে ফিরেছেন বাবা জিয়াউর রহমান। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে কোচিং মাঠে নেমেছেন তিনি।    মেয়ের অবস্থার কথা জানিয়ে রোববার জিয়া বলছিলেন, ‘আমার বাচ্চা হুট করে অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। খুব খারাপ অবস্থা হয়েছিল। আল্লাহর অশেষ রহমতে ও আপনাদের দোয়ায় ও ভালো আছে। এখন ওষুধ চলছে ওর। ডাক্তার তিন মাসের একটা কোর্স দিয়েছে। ওটাই চলছে। ’   বিপিএলের শুরুর দিকে মাঠে নামতে পারেননি জিয়া।

তাকে ছাড়া খেলা চার ম্যাচের তিনটিতে জিতেছে চট্টগ্রাম।

এ সময়ে দলের সঙ্গে থাকেননি। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছ থেকে ঠিকই সমর্থন পেয়েছেন। এজন্য তিনি জানিয়েছেন ধন্যবাদও।   তিনি বলেন, ‘মানুষের বিপদে যদি মানুষ না থাকে, তাহলে কিন্তু মানুষ বলা যাবে না। এটা কিন্তু স্বাভাবিক নিয়ম, আপনি বিপদে পড়েছেন আমি পাশে থাকবো। আসলে অনেক সময় (এমনটা) হয় না। কিন্তু আমার দল আমাকে মানসিকভাবে খুব সমর্থন দিয়েছে। ’   ‘সবসময় আমার পাশে ছিল, আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে; খোঁজ নিয়েছে। একজন সন্তানের বাবা হিসেবে আমি খুশি। তারা আমাকে কোনো চাপ দেয়নি। তারা বলেছে আপনি থাকেন, কোনো টেনশন নিয়েন না। আপনার কোনো সাহায্য লাগলে আমরা আছি। ’

সম্পর্কিত খবর:

শ্রীলঙ্কার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল আইসিসি

Share.

Leave A Reply

Exit mobile version