আপডেট:০৭:১১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৮, ২০২৪ |  অনলাইন সংস্করণ  ডিগ্রির ঘরে নামলো দুই জেলার তাপমাত্রা

আবারও ৫ ডিগ্রির ঘরে নামলো দুই জেলার তাপমাত্রা
আবারও ৫ ডিগ্রির ঘরে নামলো দুই জেলার তাপমাত্রা

  ডিগ্রির ঘরে নামলো দুই জেলার তাপমাত্রা

পঞ্চগড় ও দিনাজপুর: তীব্র শৈত্যপ্রবাহ থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার একদিন পর আবারও দেশের সর্ব উত্তরের দুই জেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ।

এতে জেলা দুটির তাপমাত্রার পারদ নামল ৫ ডিগ্রির ঘরে।   রোববার (২৮ জানুয়ারি) সকাল ৬টায় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। একই সময়ে একই তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে দিনাজপুরে, ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ তাপমাত্রা এই মৌসুমে দেশের ও দুটি জেলারই সর্বনিম্ন।   এর আগে গত শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় মৌসুমের ও দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হলেও তা শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বেড়ে ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা হয়।

clipping path tech

আবহাওয়া অফিস বলছে, তাপমাত্রার পারদ নেমে যাওয়ায় জেলায় বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এতে কনকনে শীতে জনজীবনে নেমে এসেছে জনদুর্ভোগ। চলমান শৈত্যপ্রবাহের কারণে দিনাজপুরের তাপমাত্রা ওঠানামা করলেও ১০ ডিগ্রির নিচে থাকছে প্রায়শই।   দেখা গেছে তাপমাত্রার পারদ নেমে আসায় এবং শীতের তীব্রতা বাড়ায় বেশি দুর্ভোগে ও বিপাকে পড়েছেন শ্রমজীবী ও এ জেলার নিম্ন আয়ের মানুষরা। শীতের তীব্রতায় অনেকেই ঘরবন্দি জীবন অতিবাহিত করছেন। সকাল সকাল কাজে যেতে না পারার পাশাপাশি রাতে গরম কাপড়ের জন্য দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষ।   তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের পর্যবেক্ষক রোকনুজ্জামান রোকন বাংলানিউজকে বলেন, আজ সকাল ৬টায় জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায় রেকর্ড হয়েছে ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এর আগে গত শুক্রবার দেশের ও মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায় রেকর্ড করা হয় ৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি। যা দুইদিনে দশমিক ৩ ডিগ্রি কমে গিয়েছে।   তিনি আরও বলেন, বর্তমানে বাতাসের গতিবেগ রয়েছে ঘণ্টায় ৩ থেকে ৫ কিলোমিটার এবং বাতাসে আর্দ্রতা ১০০ শতাংশ।উত্তরের দুই জেলা দিনাজপুর ও পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় এ মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে আজ রোববার সকালে। এই দুই এলাকার আজকের তাপমাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

আজ দেশের দুই বিভাগসহ ২৮টি জেলায় মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বইছে বলে সকাল সাড়ে আটটার সময় জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আজ রাজধানীতেও গতকালের চেয়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমেছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, আজ তাপমাত্রা কম হলেও আগামীকাল থেকে তা বাড়তে পারে।   রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের মোট জেলার সংখ্যা ১৬। এর বাইরে আরও ১২ জেলায় আজ শৈত্যপ্রবাহ বইছে। জেলাগুলো হলো গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, মানিকগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সাতক্ষীরা, যশোর, কুষ্টিয়া, বরিশাল, চুয়াডাঙ্গা, টাঙ্গাইল, কুমিল্লা ও পটুয়াখালী।   আজ রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ এক দিনের ব্যবধানে সেখানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি নেমে গেল।   তাপমাত্রা ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে সেখানে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ থাকে বলে গণ্য করা হয়। তাপমাত্রা ৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামলে, তা হয় মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। তাপমাত্রা ৪ থেকে ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ। সে অনুযায়ী, আজ পঞ্চগড় ও দিনাজপুরে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বইছে।

metafore online
কিন্তু আবহাওয়া অধিদপ্তর একে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বলছে না।   এর কারণ হিসেবে অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘পরপর দুই দিন তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে থাকলে সে সময় তীব্র শৈত্যপ্রবাহ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু আমাদের পূর্বাভাস বলছে, আগামীকাল আবার তাপমাত্রা বেড়ে যাবে। তাই এখনই এটাকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বলা হচ্ছে না।’   এই আবহাওয়াবিদ বলেন, আগামীকাল দেশের সর্বত্রই তাপমাত্রা আজকের চেয়ে বেড়ে যেতে পারে খানিকটা।   আজ তাপমাত্রা অনেক কম হলেও রাজধানীসহ বেশির ভাগ অঞ্চলে কুয়াশা তেমন নেই। সকালে রোদ উঠেছে। তাই এই কম তাপমাত্রাতেও দিনের বেলা তাপমাত্রা বেড়ে যাচ্ছে বলে জানান বজলুর রশীদ।

সম্পর্কিত খবর:

জীবননগরে নার্সকে গলা কেটে হত্যা

Share.

Leave A Reply

Exit mobile version